আসছে মাহে রমজান, আপনি প্রস্তুত তো?

0 Shares
Share

আর কয়েকদিন পরেই মাহে রমজানের বাঁকা চাঁদ পশ্চিমাকাশে উদিত হবে, রহমত, মাগফিরাত ও নাজাতের সওগাত নিয়ে আমাদের মধ্যে হাজির হবে পবিত্র মাহে রমজান। কুরআন নাজিলের এ মাসকে বরণ করে নিতে চলছে বিভিন্ন প্রস্তুতি। রমজান শব্দটি এসছে ‘রমজ’ থেকে এর অর্থ ভম্মীভূত করা। কি হবে ভম্মীভূত? সঠিকভাবে সিয়াম সাধনার মাধ্যমে আমাদের পাশবিকতা ভম্মীভূত হবে, আর আমরা হয়ে উঠবো মানবতার কল্যানে নিবেদিত পূর্ণ মানুষ। এটিই রোজার মূল লক্ষ। এ লক্ষ অর্জনে সকল ব্যাক্তিদের জন্য জান্নাতে ‘রাইয়ান’ নামে একটি দরজা সদা উম্মুক্ত থাকবে।

হাদিসে কুদসিতে এসেছে মহান আল্লাহ বলেন, রোজা আমার জন্য, আর আমি নিজেই এর পুরস্কার দেবো। বাস্তবে সব ইবাদাত মানুষ দেখতে পায়। একমাত্র রোজাই মানুষ দেখতে পায় না। রোজাদারের মত থেকেও একজন মানুষ যদি গোপনে কিছু খায় তা কারো পক্ষেই জানা সম্ভব নয়। এটি একমাত্র জানবেন আল্লাহ। আর এ জন্যই এ রোজার প্রতিদান আল্লাহ তা’আলা নিজেই দিবেন।

সারা জাহানের প্রতিপালক মহাপরাক্রমশালী আল্লাহর নিজের দেয়া পুরস্কার কত মূল্যবান হবে তা আমাদের কল্পনার রাজ্যেও রুপ দেয়া অসম্ভব। এ মহা সৌভাগ্য বহনকারী মাহে রমজান আমাদের দ্বারে সমাগত এ মাহে রমজানে কি আমরা স্বাগত না জানিয়ে পারি? শুভেচ্ছা স্বাগত জানিয়ে একটি মিছিল। কিছু পোস্টারিং, রেডিও ও টেলিভিশনে বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার কেবল গুলোই কি রমজানকে বরণ করে নেওয়ার জন্য যথেষ্ট? না, বরং রমজানকে সঠিকভাবে বরণ করে নিতে হলে প্রত্যেক মুমিনের থাকতে হবে বিশেষ প্রস্তুতি, বিশেষ পরিকল্পনা।

প্রস্তুতি ও পরিকল্পনা ছারা বড় ধরনের কিছু অর্জন করা যায় না। মহানবী স: রমজানের আগে রমজানের প্রস্তুতি নিতেন। রজব মাস এলেই তিনি দুয়া করতেন; ‘হে আল্লাহ! আপনি আমাদের রজব ও শাবান মাসের বরকত দান করুন এবং আমাদের রমজানে পৌছে দিন’। শাবান মাস থেকে তিনি আরো অধিক এবাদতে মনোনিবেশ করতেন যাতে করে মহামূল্যবান রমজান থেকে সর্বোচ্চ ফায়দা নিতে পারেন। তাই আমাদেরও এ ব্যাপারে সচেতন হতে হবে। মানসিক প্রস্তুতি গ্রহন করতে হবে। নিতে হবে বিশেষ পরিকল্পনা।

রমজানের আগেই যা করণীয়:

এক. বিশেষ কোনো সফর বা বড় ধরনের কোন কাজ থাকলে রমজানের আগেই বাড়তি শ্রম দিয়ে তা সেরে ফেলুন।

দুই. রোজার জন্য প্রয়োজনীয় কেনাকাটা রোজার আগেই শেষ করুন।

তিন. রমজানটা আপনি কিভাবে কাটাবেন তার জন্য দৃঢ়সংকল্পবদ্ধ হোন। সম্ভব হলে আপনার পরিকল্পনাটি লিখে ফেলুন। এ লিখিত পরিকল্পনা আপনাকে দ্বীনের পথে অগ্রসর হতে সহায়তা করবে। এ ক্ষেত্রে আপনি আপনার পরিকল্পনায় নি¤েœাক্ত বিষয়গুলো রাখতে পারেন।

ক. পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত : মাহে রমজানে আপনি কতটুকু তেলাওয়াত করতে চান তা আপনার শক্তি, সমর্থ ও সময় বিবেচনা করে লিখুন।

খ. কুরআন অধ্যায়ন : পবিত্র কুরআন নাজিল হয়েছে মানুষের হেদায়াতের জন্য তাই অর্থ ও ব্যাখ্যা সহ কুরআন বোঝা একান্ত জরুরী। এ মাসে অবশ্যই একটা উল্লেখযোগ্য সময় আল্লাহর কালাম বোঝার জন্য বরাদ্দ করুন।

গ. সহিহ তেলাওয়াত শিক্ষা : সহিহ তেলাওয়াত বিশুদ্ধ নামাজের শর্ত। কুরআন নাজিলের এ পবিত্র মাসে আপনি মহল্লার মসজিদে আয়োজিত কুরআন প্রশিক্ষণ ক্লাসে সব জড়তা ঝেড়ে ফেলে শামিল হোন। প্রথম একজন ভালো ক্বারীর কাছে ব্যাক্তিগতভাবে বিশুদ্ধ তেলাওয়াতের প্রশিক্ষন নিন। নিবিড় প্রচেষ্টা চালালে ইনশাআল্লাহ এক মাসেই আপনি বিশুদ্ধ তেলাওয়াত শিক্ষায় এক নূন্যতম মানে চলে আসতে পারবেন।

ঘ. তাফসির, হাদিস, ইসলামী সাহিত্য ক্রয় : এ মাসে বিভিন্ন ইসলামী প্রকাশনা তাদের বইগুলোতে ৫০ থেকে ৬০ শতাংশ কমিশন দেয়। আপনি এ সুযোগটি গ্রহন করুন। এ বইগুলো আপনার জ্ঞানকে করবে সমৃদ্ধ, চরিত্রকে করবে মার্জিত। একই সাথে বইগুলো আপনার পরিবার পরিজনের দ্বীনের গৌরভ ছড়িয়ে দিয়ে আপনার জন্য সাদকায়ে জারিয়ার ব্যবস্থা করবে। তাই আর বিলম্ব নয়, রমজানের আগেই আপনার পাঠাগারকে সমৃদ্ধ করুন।

ঙ.নফল ইবাদত: তারাবিহ- নফল ইবাদত ও দান সদকার ব্যাপারেও আপনি পরিকল্পনা নিতে পারেন। এ পরিকল্পনা আপনাকে অলসতা থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করবে। আপনি জাকাতদাতা হলে জাকাতের হিসাব-নিকাশ ও বিলিবন্টনের কাজটি এ মাসে সেরে নিতে পারেন। এ মাসের একটি বিশেষ ফজিলত হলো এ মাসে একটি ফরজ ৭০ টি ফরজ আদায়ের সমান এবং একটি নফল একটি ফরজ আদায়ের সমান সওয়াব। তাই মহান আল্লাহর এ স্পেশাল অফার গ্রহনে আমাদের উৎসাহী হওয়া একান্ত জরুরী। সেহরির কারনে এ মাসে তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করা খুবই সহজ। কিন্তু অনেকেই এ সময়ে রেডিও টিভির সেহরি অনুষ্ঠান শোনা ও দেখায় ব্যাস্ত হয়ে পড়েন, এতে ইসলামি জ্ঞান বৃদ্ধি পাবে, সওয়াবও হবে কিন্তু হাদিস অনুযায়ী আপনি বেশি লাভবান হবেন যদি এ সময়টা আপনি নামাজ, কুরআন তেলাওয়াত, জিকির, দোয়া-দূরুদপাঠ ও আল্লাহর দরবারে রোনাজারি করে কাটান।

চ. ইতিকাফঃ রমজানে ইতিফাক করতে চাইলে আপনাকে তারও দৃঢ় পরিকল্পনা করতে হবে এবং সে নেক ইচ্ছাকে বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজনীয় পারিবারিক কাজগুলো আপনাকে আগেই শেষ করতে হবে।

ছ. পারিবারিক সংশোধনঃ রমজানে আপনি পারিবারিক সংশোধনের জন্য বিশেষ উদ্যোগ নিতে পারেন। এজন্য আপনি দিনের একটি নির্দিষ্ট সময় তালিমের জন্য বেছে নিন। এ ব্যাপারে পরিবারের সদস্যদের মতামত নিলে সবার পক্ষ থেকে সাড়া পাবেন। কারন পবিত্র রমজানে মানুষের মধ্যে দ্বীনের কথা শোনার আগ্রহ বৃদ্ধি পায়।

জ. রমজানের পবিত্রতা রক্ষাঃ রমজানের পবিত্রতা রক্ষায় বিশেষ পরিকল্পনা নিন। কোন বদঅভ্যাস থাকলে তা ছাড়ার দৃঢ়সিদ্ধান্ত নিন। পরিবারের সদস্যদের মধ্যে কেউ যাতে বেরোজাদার না থাকে তার জন্য রমজানের আগেই তাদের সতর্ক করুন। আপনার পয়সায় আপনার ঘরে দিনের বেলায় পবিত্র রমজানে শিশু ও অক্ষম বৃদ্ধ বদ্ধাদের ছাড়া অন্যের অন্নসংস্থানের সব পথ বন্ধ করে দিন। এক্ষেত্রে আপনার ব্যক্তিত্ব কঠোরতা ও দরদভরা উপদেশ সবাইকে রোজা রাখতে উদ্বুদ্ধ করবে।

এ ব্যাপারে রমজানের আগেই যথার্থ পরিবেশ তৈরি করুন, মনে রাখবেন বকাঝকা ও রাগারাগি আপনার মহৎ ইচ্ছাকে ব্যার্থ করে দিতে পারে। সমাজে আপনার দায়িত্বের পরিধি যত বেশি রমজানের পবিত্রতা রক্ষায় আপনার কর্তব্যও তত বেশি। আপনার নেক পরিকল্পনার সফল বাস্তবায়নের জন্য আল্লাহর সাহায্য কামনা করুন। পরিকল্পনা বাস্তবায়নে আমাদের ঐকান্তিকতা ও নিষ্ঠা একান্ত জরুরী।

খালেসভাবে আল্লাহর পথে আগাতে চাইলে আল্লাহ অবশ্যই আমাদের সাহায্য করবেন। হাদিসে এসেছে, যে ব্যাক্তি আল্লাহর পথে এক বিঘত পরিমান আগায় আল্লাহ তার দিকে একহাত পরিমান আগান, আর যে আল্লাহর দিকে হেটে আগায়, আল্লাহ তার দিকে দৌড়ে আসেন। দেখুন আল্লাহ কত দয়ালু। হাদীস থেকে জানা যায়, বান্দাহ যখন নেক কাজ করার নিয়ত (পরিকল্পনা, ইচ্ছা) করে তখনই আল্লাহর নির্দেশে কর্তব্যরত ফেরেশতা তার আমলনামায় একটি নেকি লেখেন।

বান্দাহ যদি নেক কাজটি করে ফেলে তবে তার আমলনামায় আরো নেকি সংযুক্ত করা হয় কিন্তু বান্দাহ যদি ওই কাজটি করতে অপারগ হয় তবুও তার আমলনামায় ওই প্রথম নেকিটি থেকে যায়। আর বান্দাহ যখন খারাপ কাজ করার পরিকল্পনা করে তখন কর্তব্যরত ফেরেশতা কিছু লেখা থেকে বিরত থাকেন।

যদি লিখতে আল্লাহ দয়া করে বিলম্ব করেন, দেখেন বান্দা ফিরে আসে কিনা। সুবাহান আল্লাহ। আল্লাহ কতই না মহান! নেক কাজের পরিকল্পনাও একটি নেক কাজ। তাই আসুন রমজানের আগেই রমজানকে বরণ করে নেয়ার প্রস্তুতি পরিকল্পনা নেই।

লেখক: ফিরোজ মাহমুদ
ইসলামি গবেষক ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব

0 Shares

সকল খবর

Archive Calendar

এপ্রিল ২০২০
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« মার্চ   মে »
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
সব বিভাগের খবর এখানে দেখুন
div1 div2 div3 div4 div5 div6 div7 div8

আরো খবর পড়ুন...

প্রধান উপদেষ্টা: এম লোকমান হোসাঈন
উপদেষ্টামন্ডলী: মোঃ শাহাব উদ্দিন বাচ্চু, হাবিবা আক্তার মনি
আইন উপদেষ্টা:
প্রকাশক ও সম্পাদক: কাওসার মাহমুদ (মুন্না)
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: খাঁন আব্বাস


স্থায়ী কার্যালয়: রহমতপুর বাজার, বাবুগঞ্জ বরিশাল।
নির্বাহী সম্পাদক: রাশেদ খান (সুমন)
যুগ্ন নির্বাহী সম্পাদক: সোহানুর রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: কবির হোসেন
যুগ্ন ব্যবস্থাপনা সম্পাদক:
বার্তা সম্পাদক: মেহেদী হাসান
যুগ্ম বার্তা সম্পাদক:

Share

আমাদের পরিবার

অস্থায়ী কার্যালয়: ভূঁইয়া ভবন, ফকির বাড়ি রোড ,বরিশাল।

  • মুঠোফোন: 01812159112,
  • ekusherchokh24@gmail.com

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য

Developed by: