প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সভাপতির চেক জালকরাসহ একাধিক অভিযোগ
বাংলাদেশ, ১৬ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং। সর্বশেষ আপডেট: ১ দিন আগে
  বীর খেতাবপ্রাপ্তদের সাথে নিয়ে মহান বিজয় দিবস উদযাপনের প্রস্তুতি  বরিশালের কীর্তনখোলা নদীতে যাত্রীবাহী লঞ্চ-কার্গোর সংঘর্ষ  ফুলবাড়ীতে হিন্দু বাড়ীতে হামলা; মন্দিরে অগ্নিসংযোগ, ছয়জন আটক  কুড়িগ্রামে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস পালিত  বিপিএলে বিসিবি’র খাবার খেয়ে অসুস্থ ১৭ সাংবাদিক  আওয়ামী লীগ নেতার বাড়িতে ‘অস্ত্র কারখানা’  নবজাতককে দেখতে গিয়ে বাবা ও নানার মৃত্যু  দৈনিক সংগ্রামের সম্পাদক ৩ দিনের রিমান্ডে  কলাপাড়ায় বাস কাউন্টার দখল নিয়ে সংঘর্ষে আহত ২  তিতাসে বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা  ইসলাম ধর্মে মুগ্ধ হয়ে মুসলিম হলেন রুপম দাস  জাপা’র এমপিকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে আ. লীগের ২২ নেতাকর্মীর নামে মামলা  ভোলায় ধানক্ষেতে প্রতিবন্ধীর গলাকাটা লাশ  বরিশালে শিক্ষক ও বখাটের ধর্ষণে ৫ম শ্রেণির ছাত্রী পুত্র সন্তানের মা  এডিসি জাহাঙ্গীরের উদ্যোগে বিদ্যুৎ পেল ১৫টি হিন্দু পরিবার  ভূরুঙ্গামারীতে ট্রাক্টরচাপায় একজন নিহত  পাল্টাপাল্টি ছুরিকাঘাতে জামাই ও শাশুড়ি নিহত  আসামি আজিজ বিদেশে, নিরপরাধ আজিজ কারাগারে!  হানিমুনে ‘নার্ভাস’ মিথিলা  উত্তরপূর্ব ভারতে বিক্ষোভ চলছেই, আসামে নিহত ৫

কুড়িগ্রাম সদরের চৈতেরখামার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সভাপতির চেক জালকরাসহ একাধিক অভিযোগ কুড়িগ্রাম সদরের চৈতেরখামার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

এ‌জি লাভলু

এ‌জি লাভলু

কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি:

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ১০, ২০১৯ ১:৫৩ অপরাহ্ণ

কুড়িগ্রাম সদরের চৈতেরখামার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফজলুল হকের বিরুদ্ধে চেক জালিয়াতিসহ একাধিক অনিয়মের প্রতিকার চেয়ে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। গতকাল (৯ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টায় কুড়িগ্রাম প্রেসক্লাবে অভিযোগের কপি হস্তান্তর করে সাংবাদিকদের কাছে একাধিক অনিয়মের চিত্র তুলে ধরে ওই প্রধান শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও বদলীর দাবী করেন বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি আব্দুল হাকিম।

আব্দুল হাকিম জানান, সদর উপজেলার ঘোগাদহ ইউনিয়নের চৈতার খামার গ্রামে অবস্থিত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি বর্তমানে বেহাল অবস্থায় রয়েছে। তার বিরুদ্ধে শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকদের সাথে খারাপ আচরণের অভিযোগ রয়েছে। তিনি কঠোর নির্দেশনা থাকা সত্বেও জাতীয় দিবসগুলো পালন করেন না। এসএমসি ও মা সভাবেশের মত গুরুত্বপূর্ণ সভাগুলো না করা। অতিরিক্ত পরীক্ষার ফি আদায় করা। বিদ্যালয় ভবন ধান ব্যবসায়ীদের কাছে ভাড়া দেয়া। দেরীতে বিদ্যালয়ে আসা এবং বেলা ২টার পর ত্যাগ করা। এছাড়াও বিদ্যালয়ে ২/৩ দিন উপস্থিত না থেকেও দপ্তরীকে দিয়ে হাজিরা খাতা বাসায় নিয়ে গিয়ে স্বাক্ষর করা। স্কুলের উন্নয়নে স্লিপ ও ক্ষুদ্র মেরামতের বরাদ্দকৃত অর্থ দায়সারা কাজ করে আত্মসাৎ করা। সর্বশেষ ২০১৮-১৯ সালের ক্ষুদ্র মেরামত, স্লিপ ও রুটিন মেরামতকরণের ২ লাখ ৭০ হাজার টাকার কাজ আত্মীয়-স্বজনদের দিয়ে নামমাত্র কাজ করে অর্থ আত্মসাৎ করার অভিযোগ করা হয়েছে। এছাড়াও সভাপতির স্বাক্ষর জাল করে মাসিক বিবরণী জমা প্রদান ও চেকে স্বাক্ষর জাল করে টাকা উত্তোলনের গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। দরখাস্তে সরেজমিনে তদন্তপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিসহ প্রধান শিক্ষকের বদলীর আবেদন করা হয়েছে। আবেদনে ৪৪ জন অভিভাবকের স্বাক্ষর ছিল।

সকল অভিযোগ অস্বীকার করে চৈতেরখামার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফজলুল হক জানান, বিদ্যালয়ের বিপরীতে বিভিন্ন বরাদ্দের অর্থ অনৈতিকভাবে আদায় করতে না পেরে আমার সুনাম বিনষ্ট করার নিমিত্তে ডাহা মিথ্যে অভিযোগ করা হয়েছে। আমি এর তীব্র নিন্দা জানাই।

অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার লুৎফর রহমান জানান, এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শহিদুল ইসলাম স্বীকার করেন, আমার দপ্তরে এ ব্যাপারে একটি অভিযোগ করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট দপ্তর বিষয়টি খতিয়ে দেখবে।

আর্কাইভ

নভেম্বর ২০১৯
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« অক্টোবর   ডিসেম্বর »
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  
আর্কাইভ
প্রধান উপদেষ্টা: এম লোকমান হোসাঈন
উপদেষ্টামন্ডলী: মোঃ শাহাব উদ্দিন বাচ্চু, হাবিবা আক্তার মনি
আইন উপদেষ্টা:
প্রকাশক ও সম্পাদক: কাওসার মাহমুদ (মুন্না)
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: খাঁন আব্বাস
নির্বাহী সম্পাদক: রাশেদ খান (সুমন)
যুগ্ন নির্বাহী সম্পাদক: সোহানুর রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: কবির হোসেন
যুগ্ন ব্যবস্থাপনা সম্পাদক:
বার্তা সম্পাদক: মেহেদী হাসান
যুগ্ম বার্তা সম্পাদক:
স্থায়ী কার্যালয়: রহমতপুর বাজার, বাবুগঞ্জ বরিশাল।
অস্থায়ী কার্যালয়: ভূঁইয়া ভবন, ফকির বাড়ি রোড ,বরিশাল। মুঠোফোন: 01812159112, [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য
Developed by: NEXTZEN LIMITED