ভোলায় মা ইলিশ শিকারের মহাৎসব

0 Shares
Share

ভোলার মেঘনা-তেতুঁলিয়া নদীতে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মা ইলিশ শিকারের মহাৎসব চলছে। এদের মধ্যে ভোলা সদরের রাজাপুর, ভেদুরিয়া, ইলিশা, বোহানউদ্দিনের হাকিমউদ্দিন, মির্জাকালু, জয়া, চরফ্যাশনের কুকরি মুকরী, ঢাল চর, পাতিলা ও দৌলতখান, তজুমদ্দিন, মনপুরা ও লালমোহন উপজেলার পুরো এলাকার মেঘনা-তেতুঁলিয়া নদীতে রাতের আধাঁরে মা ইলিশ শিকারের মহাৎসব চলছে।

ভোলার রাজাপুরের জেলেদের সঙ্গে আলাপকালে জানা যায়, সরকারিভাবে বরাদ্দকৃত চাল সব জেলে না পাওয়ায় ও মহাজন এবং এনজিওর কিস্তির টাকা পরিশোধের চাপে তারা রাতের আধাঁরে প্রশাসনকে ফাঁকি দিয়ে মা ইলিশ শিকার করতে বাধ্য হচ্ছে।

তারা আরও জানান, অনেক কষ্ট করে রাতের আধাঁরে মা ইলিশ শিকার করে গোপনের বিক্রি করেন। আগের চেয়ে অনেক কম দামে এ ইলিশ বিক্রি করছেন তারা। ৮০০-৯০০ গ্রামের ইলিশ হালি বিক্রি হচ্ছে এক হাজার থেকে ১২শ টাকা এবং এক কেজি বা তার একটু বেশি ওজনের ইলিশের হালি বিক্রি হচ্ছে ১২শ-১৩শ টাকা।

এদিকে মা ইলিশ অভিযানের ২২ দিন পর্যন্ত সকল ব্যাংক ও এনজিওকে ঋণের কিস্তি না নেয়ার জন্য ভোলা প্রশাসন থেকে চিঠি দেয়া হলেও তা মানছেন না অনেক এনজিও বলে অভিযোগ জেলেদের।

ভোলার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক জানান, আমরা মা ইলিশ অভিযান এ বছর সফল করতে সকল ধরনের প্রস্ততি গ্রহণ করেছি। এছাড়াও এনজিও ও ব্যাংকগুলোতে নিষেধাজ্ঞার ২২ দিন কিস্তি না নেয়ার জন্য চিঠি দিয়েছি। তবে কোনো ব্যাংক বা এনজিও যদি আমাদের নিষেধ অমান্য করে তাহলে আমরা তদন্তের মাধ্যমে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

জেলা মৎস্য অফিস সূত্রে জানা গেছে, ভোলা জেলার সাত উপজেলায় এক লাখ ৩২ হাজার জেলের সরকারিভাবে নিবন্ধন রয়েছে। এদের মধ্যে সরকারিভাবে ২০ কেজি করে মা ইলিশের অভিযানে এ বছর চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ৮৮ হাজার ১১১ জনকে।

ভোলা জেলা মৎস্য অফিসার এসএম আজহারুল ইসলাম জানান, কিছু অসাধু জেলে উচ্চ মুনাফার জন্য নদীতে গিয়ে মা ইলিশ শিকার করছে। আমাদের নিয়মিত অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

তিনি আরও জানান, কোনো জেলে প্রশাসনকে ম্যানেজ করে ইলিশ শিকারে নদীতে যায় না। এটা জেলেরা নিজেদের বাঁচানোর জন্য বলে থাকতে পারে।

0 Shares

সকল খবর

Archive Calendar

সব বিভাগের খবর এখানে দেখুন
div1 div2 div3 div4 div5 div6 div7 div8

আরো খবর পড়ুন...

প্রধান উপদেষ্টা: এম লোকমান হোসাঈন
উপদেষ্টামন্ডলী: মোঃ শাহাব উদ্দিন বাচ্চু, হাবিবা আক্তার মনি
আইন উপদেষ্টা:
প্রকাশক ও সম্পাদক: কাওসার মাহমুদ (মুন্না)
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: খাঁন আব্বাস


স্থায়ী কার্যালয়: রহমতপুর বাজার, বাবুগঞ্জ বরিশাল।
নির্বাহী সম্পাদক: রাশেদ খান (সুমন)
যুগ্ন নির্বাহী সম্পাদক: সোহানুর রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: কবির হোসেন
যুগ্ন ব্যবস্থাপনা সম্পাদক:
বার্তা সম্পাদক: মেহেদী হাসান
যুগ্ম বার্তা সম্পাদক:

Share

আমাদের পরিবার

অস্থায়ী কার্যালয়: ভূঁইয়া ভবন, ফকির বাড়ি রোড ,বরিশাল।

  • মুঠোফোন: 01812159112,
  • ekusherchokh24@gmail.com

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য

Developed by: